Bangladesh bank career ই আমার প্রথম পছন্দ

Bangladesh bank career ই আমার প্রথম পছন্দ যারা ভাবছেন

Bangladesh bank career হিসেবে চাই। এ ছাড়া চাকরি করবই না- কিন্তু preparation এর কাঁথায় আগুন দিয়ে বসে আছেন। আবার অনেকে ভাবছেন যে,  Bangladesh bank career এর এডি, বিএসসির দুইটি নিয়োগ পরীক্ষাসহ অন্যান্য Lucrative জবের প্রিলি পরীক্ষার অনেক অনেক দেরি আছে- পড়াশোনায় ঢিল দিয়েছেন, আবার অনেকে আসলে ঠিক কী করবেন বুঝতেই সময় নিচ্ছেন- সত্যি বলছি দাদা, ধরা খাবেন।

যে কোন নিয়োগ পরীক্ষায়  বা Bangladesh bank career বিল্ডিং  এ যদি ধরা খেতে না চান-

চালিয়ে যান। মানে পড়াশোনা চালিয়ে যান।

পড়াশোনা বিষয়ক কোনকিছুকে আমি শর্ট technique, টিপস, কৌশল ইত্যাদি ফাঁকিবাজি শব্দ দিয়ে আবদ্ধ করতে কুণ্ঠাবোধ করি। এটাকে বরং Process বললে পড়াশোনা নামক গাম্ভীর্যপূর্ণ শব্দের সাথে মিল খায়।

ধরে নিন, রোজার পরপরই প্রিলি পরীক্ষা হবে। তাই বলি, নিচের Processগুলো ট্রাই করে দেখতে পারেনঃ

১। আমি অমুক বিশ্ববিদ্যালয়ের, অমুক কলেজের, তমুক সাবজেক্টের ছাত্র- আমার দ্বারা হবে কী!- এইসব ফালতু এবং অকাজের চিন্তাধারা বাদ দিয়ে দিন। আপনি পরীক্ষা দেয়ার যোগ্য না হলে job circular ই আপনাকে রিটার্ন টিকিট ধরিয়ে দিত;

২। পাবলিকের Distracting কথায় কান না দিয়ে নিজের মত করে প্লান করে ফেলুন;

৩। আপনার দুর্বল দিকটাতে বেশি সময় দিন;

৪। তবে সবগুলো বিষয়ই Touch করবেন। Touch করা মানে স্পর্শ করেই ছেড়ে দিবেন তা নয়; বরং কিছু না কিছু পড়ুন এবং লিখুন;

৫। লিখুন বিশেষ করে বাংলা ও ইংরেজি কঠিন বানানগুলো; শিখুন Translation;

৬। কোন টপিক পড়ার পর নিজের সাথেই প্রশ্নোত্তর নাটক করুন;

৭। ঈর্ষা, হিংসা মন থেকে ঝেড়ে ফেলে জেদটাকে বের করে আনুন। কাজ দেবে;

৮। সবথেকে প্রয়োজনীয়,  নিজের লক্ষ্য কারো সাথেই শেয়ার করবেন না। কারণ, এতে জিদের ধার কমে যায়;

৯। যখনই লক্ষ্যচ্যুত হতে মন চাইবে, শরীর বিদ্রোহ করে উঠবে- নিজেকে অটো-সাজেশান দিন। আপনার সবথেকে বড় এবং বিশ্বস্ত গাইড আপনি নিজে;

১০। সম্ভব হলে কারো সাথে আলোচনার মাধ্যমে পড়াশোনা করেন। গ্রুপ স্টাডি খুব কাজের জিনিস;

১১। ফোকাস বা ক্রিয়েটিভ রাইটিং এ ভাল করার জন্য vocabulary সম্পর্কে ভাল ধারণা রাখার চেষ্টা করুন;

১২। চাকরি করতেই হবে- এমন দিব্যি কেউ আপনাকে দেয়নি। প্রথম চান্সে Bangladesh bank career  আপনার না-ই হতে পারে। কিছু যায় আসে না। সুযোগের শেষ সার্কুলার পর্যন্ত চেষ্টা করে যান। চেষ্টা করলেই যে আপনি সব সময় সফল হবেন- এমন গ্যারান্টিও কেউ আপনাকে দেবে না। সবকিছুর জন্যই নিজেকে প্রস্তুত করে রাখুন-কষ্টটা কম লাগবে। কেননা, বিধাতা হয় তো আপনার ভাগ্যে চাকরি নামক ব্রিটিশ গোলামি করাটা লিখেননি। লিখেছেন এমন করেই যেন আপনি নিজেই কমপক্ষে হাজার কয়েক বেকারের স্বপ্নদ্রষ্টা হতে পারেন।

আমার কথা আপনার শুনতেই হবে বা মানতেই হবে- এমন কোন বাধ্যবাধকতা নাই। সময় আপনার, জীবন আপনার, সিদ্ধান্তও আপনার। সেখানে আমি এক হরিদাস পাল বই কেউ নই।

আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করতে ফেসবুক আইকনে ক্লিক করুনঃ
Updated: May 13, 2019 — 12:37 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *