Social Safety Net Program: focus writing

Social Safety Net Program বা সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী : রাষ্ট্র কর্তৃক দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে আর্থিক বা অন্য কোন সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থাই সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী বা Social Safety Net Program।

বিগত প্রায় তিন দশকে বাংলাদেশে এ ব্যবস্থার মাত্রা, আকার ও ধরনের প্রসার ঘটেছে। এই প্রেক্ষিতে বিগত ৫ বছরে Social Safety Net খাতে বাজেট বরাদ্দ ও GDP তে এর অবদানের পরিসংখ্যান দেখানো হল:

Social Safety Net Program

FY

Amount(Fig in Crore)% of budget

% of GDP

2017-1854,205.8913.542.44
2016-1740,857.0012.882.09
2015-1635,975.0013.602.08
2014-1530,751.1112.282.30
2013-1426,654.0112.332.26
উৎসঃ অর্থনৈতিক সমীক্ষা- ২০১৩-১৪ থেকে ২০১৭-১৮

বাংলাদেশে বাস্তবায়িত Social Safety Net Program সমূহকে Social Safety Net বিষয়ক জীবনচক্র পদ্ধতির ভিত্তিতে পাঁচটি গুচ্ছে বিন্যস্ত করা হয়েছে। মূল গুচ্ছভিত্তিক কর্মসূচিগুলাে হলাে:

ক. শিশুদের জন্য কর্মসূচি

খ. কর্ম উপযােগী নাগরিকদের জন্য কর্মসূচি

গ, বয়স্কদের জন্য পেনশন ব্যবস্থা

ঘ. প্রতিবন্ধীদের জন্য কর্মসূচি এবং

ঙ. ক্ষুদ্র ও বিশেষ কর্মসূচি।

উক্ত গুচ্ছের মধ্যে থেকে দারিদ্র্য বিমোচন কৌশলপত্র (পিআরএসপি) ১৮টি Social Safety Net কর্মসূচি চিহ্নিত করেছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু খাতে ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বরাদ্দের পরিমাণ ও এ বিষয়ে সংক্ষেপে আলোচনা করা হল:

ক্রম

বিবরণ

বরাদ্দ(কোটি টাকায়)

বয়স্ক ভাতা কর্মসূচি২,১০০.০০
প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র (ওয়ান স্টপ সার্ভিস)৬৫.০০
প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি কর্মসূচী৫৪.৫০
বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্তা দুঃস্থ মহিলা ভাতা কার্যক্রম৭৫৯.০০
মুক্তিযােদ্ধা সম্মানী ভাতা৩,২০০.০০
শহীদ পরিবার ও যুদ্ধাহত মুক্তিযােদ্ধাদের চিকিৎসা ও সম্মানী ভাতা২৫৯.৩৬
দরিদ্র মায়েদের মাতৃত্বকালীন ভাতা৩৬০.০০
কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল১২০.০০
অসচ্ছল প্রতিবন্ধীদের জন্য ভাতা ও শিক্ষা৬৯৩.০০
১০বেদে ও অনগ্রসর জনগােষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন কার্যক্রম২৭.০০
১১হিজড়া জনগােষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন কার্যক্রম১১.৩৫

১। দেশের মােট জনসংখ্যার বড় একটি অংশ বয়স্ক তথা শ্রম বাজারের সাথে সম্পৃক্ত নয়। এদের অনেকেই দারিদ্রক্লিষ্ট। অবহেলিত বয়স্ক এসব জনগােষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নতির লক্ষ্যে ১৯৯৭-৯৮ অর্থবছর থেকে সরকার বয়স্ক ভাতা কার্যক্রম চালু করে। সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধিভুক্ত বয়স্ক ভাতা কর্মসূচির আওতায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ২,১০০ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। এ কার্যক্রমের আওতায় ৩৫ লক্ষ বয়স্ক লােককে জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা করে ভাতা প্রদান করা হচ্ছে।

২। দেশের প্রতিবন্ধী জনগােষ্ঠীকে বিনামূল্যে ফিজিওথেরাপি ও অন্যান্য চিকিৎসা সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে ২০০৯-১০ অর্থবছরে প্রথমবারের মত প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র চালু করা হয়। এ খাতে চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মােট ৩ লক্ষ ৭৬ হাজার জন প্রতিবন্ধীকে সহায়তার লক্ষ্যে ৬৫ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

৩। প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষার অধিকার নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ২০০৭-০৮ অর্থবছর হতে শিক্ষা উপবৃত্তি কর্মসূচি চালু করা হয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মােট ৮০ হাজার প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীকে উপবৃত্তি প্রদানের জন্যে মােট ৫৪.৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এছাড়া, প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের জন্যও বিশেষ মঞ্জুরি প্রদান করা হচ্ছে।

৪। ১৯৯৯-২০০০ অর্থবছর থেকে দরিদ্র, অসহায় ও অবহেলিত মহিলা জনগােষ্ঠী বিশেষ করে বিধবাদের জন্য ভাতা প্রদান কর্মসূচি চালু করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরে মােট ১২.৬৫ লক্ষ বিধবা ও স্বামী পরিত্যক্তা দুঃস্থ মহিলাকে ভাতা প্রদান করা হচ্ছে। এ খাতে মােট ৭৫৯ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা হারে এ ভাতা প্রদান করা হয়।

৫। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযােদ্ধাদের জীবনযাত্রার মানােন্নয়নে সরকার নিরলসভাবে কাজ করছে। বর্তমানে বীরশ্রেষ্ঠদের ৩৫ হাজার টাকা, বীর উত্তমদের ২৫ হাজার টাকা, বীর বিক্রমদের ২০ হাজার টাকা এবং বীর প্রতিকদের ১৫ হাজার টাকা করে মাসিক সম্মানী প্রদান করা হয়। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মুক্তিযােদ্ধার সম্মানী ভাতা বাবদ ৩,২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। কর্মসূচিটি মুক্তিযােদ্ধাদের সামাজিক মর্যাদা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছে।

৬। মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের পরিবারবর্গ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযােদ্ধাদের কল্যাণেও সরকার কাজ করছে। শহীদ পরিবার ও যুদ্ধাহত মুক্তিযােদ্ধাদের চিকিৎসা ও সম্মানী ভাতার জন্যে পৃথক কর্মসূচি চালু করা হয়েছে। এ কর্মসূচির আওতায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য শহীদ পরিবার ও যুদ্ধাহত মুক্তিযােদ্ধাদের চিকিৎসা ও সম্মানী ভাতা ২৫৯.৩৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

৭। ২০০৭-০৮ অর্থবছরে প্রথমবারেরমত মাতৃত্বকালীন ভাতা প্রদান চালু করা হয়। এর আওতায় মূলত পল্লী এলাকার দরিদ্র মায়েদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়ে থাকে। এ কার্যক্রমের আওতায় দরিদ্র গর্ভবতী মহিলাদের ভাতা প্রদানের পাশপাশি স্বাস্থ্য ও পুষ্টি বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেয়া হয়ে থাকে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে এ খাতে ৩৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। জনপ্রতি মাসিক ৫০০ টাকা করে ৬ লক্ষ দরিদ্র মায়েদের এ ভাতা প্রদান করা হবে।

৮। ২০১০-১১ অর্থবছর থেকে শুরু হওয়া কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা তহবিল এর মাধ্যমে শহরাঞ্চলে কর্মজীবী দরিদ্র মায়েদের মাতৃত্বকালীন স্বাস্থ্য ও তাদের গর্ভস্থ সন্তান বা নবজাত শিশুর পরিপূর্ণ বিকাশে সহায়তার উদ্দেশ্যে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর ও চট্টগ্রাম গার্মেন্টস এলাকায় অবস্থিত কর্মজীবী ল্যাকটেটিং মা, ৬৪ জেলা সদরস্থ সিটি কর্পোরেশন/পৌরসভা এবং ৩২৪টি উপজেলা পর্যায়ের পৌরসভাকে এই কার্যক্রমের অন্তর্ভুক্ত রাখা হয়েছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে মােট ২ লক্ষ কর্মজীবী দরিদ্র মাকে এ সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে ১২০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

৯। অসচ্ছল প্রতিবন্ধীদের জীবনমান উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারের হয়ে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। জনপ্রতি মাসিক ৭০০ টাকা হারে এই ভাতা প্রদান করা হচ্ছে। চলতি অর্থবছরে এ বাবদ মােট ৬৯৩ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

১০। সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে ২০১২-১৩ অর্থবছর থেকে বেদে ও অনগ্রসর জনগােষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন কার্যক্রম শুরু হয়। কতিপয় অপরিহার্য পেশার সঙ্গে সম্পৃক্ত দলিত, হরিজন ও বেদে সম্প্রদায়কে সমাজের মূল স্রোতধারায় নিয়ে আসতে প্রাথমিকভাবে ৭টি জেলায় পরীক্ষামূলকভাবে এ কার্যক্রম চালু করা হয়। চলতি অর্থবছরে এ কার্যক্রমের আওতায় ২৫ হাজার জনকে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে এবং এ খাতে ২৭ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

১১। পারিবারিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে অবহেলিত হিজড়া সম্প্রদায়কে সমাজের মূল স্রোতধারায় নিয়ে আসতে সরকার কাজ করছে। হিজড়াদের সার্বিক উন্নয়নে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে ২০১২-১৩ অর্থবছরে প্রথমবারের মত ৭টি জেলায় এ কার্যক্রম চালু করা হয়। বর্তমানে সকল জেলায় এ কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ৭ হাজার হিজড়াকে সহায়তার লক্ষ্যে ১১.৩৫ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে।

পরিশেষে, Social Safety Net Program এর পরিধি ও প্রসার বিবেচনায় নিয়ে এর ব্যয় সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা শেষে অর্থাৎ ২০২০ সালে জিডিপি’র ৩ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্য স্থির করা হয়েছে। গ্রামীণ জনগােষ্ঠীকে সঞ্চয়ে উৎসাহিত করা এবং সেই সঞ্চয় গ্রামীণ অর্থনীতিতে ব্যবহার করার লক্ষ্যে একটি পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। বেসরকারি সকল প্রতিষ্ঠানে ২০১৮ সালের মধ্যে পেনশন ব্যবস্থা প্রচলনের উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। এছাড়া, ২০২১ সালে সকলের জন্য Social Safety নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি জাতীয় পেনশন ব্যবস্থা চূড়ান্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে। Social Safety Net কর্মসূচি ফলপ্রসূ করার লক্ষ্যে নীতি ও কৌশল নির্ধারণপূর্বক একটি জাতীয় সামাজিক নিরাপত্তা কৌশল (National Social Security Strategy) প্রণয়ন করা হয়েছে।

 

উল্লেখ্য যে, সনাতন দা‘র আড্ডার Social Safety Net Program এর মত আরও এবং কার্যকরী পোস্ট আপডেট পেতে notification subscribe করে রাখুন। আড্ডার নতুন পোস্ট আপনাকেই খুজে নিবে। নিচের ফেসবুক বাটনে ক্লিক করে Social Safety Net Program : Focus Writing আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করে রাখুন। নিজের প্রয়োজনেই বেশি বেশি শেয়ার করে আমাকে উৎসাহ দিন, আড্ডাকে প্রানবন্ত করুন- সর্বোচ্চ ভালটা পাবেন। 

বিনা অনুমতিতে সনাতন দা’র আড্ডার কোন পোস্ট কপি করা নিষেধ।

Social Safety Net Program : Focus Writing ছাড়াও খুব সহজে পড়ুন:

**bangladesh bank assistant director: স্বল্প সময়ে প্রস্তুতি

**Arts Faculty-র আদলে Bank Model Question: কমন পড়তেই পারে

১। কিভাবে ব্যাংক প্রিলি ইংরেজি পড়বেন

২। ব্যাংক ও বিসিএস এ আসা গুরুত্বপূর্ণ বাগধারা-০১

৩। ব্যাংকের প্রিলি পরীক্ষায় আসা ১৫বছরের শব্দসম্ভার- ০১

৪। ব্যাংকের জন্য ২৪৭টি বাংলা প্রশ্নের মধ্যে ১ম ১২৩টি question and answer

৫। bangladesh bank question pattern: ৯৬টি Translation

৬। bank general knowledge question(Sonali): ৭২টি

৭। bank exam questions answers: Computer(28টি)

bangladesh bank recruitment model question-01/15

৯। international general knowledge for bank preli: 175টি

১০। general knowledge bangladesh: ৮২টি

১১। সন্ধি বিচ্ছেদ: গুরুত্বপূর্ণ ২১০টি মাত্র- এর বেশি প্রয়োজন নেই

১২। পারিভাষিক শব্দ(২৫৬টি): কমন পড়বেই

১৩। উৎস অনুসারে শব্দের শ্রেণিবিভাগ: বিসিএস ও ব্যাংক

১৪। এক কথায় প্রকাশ: ৪৭৬টি (এর বাইরে আর কিছু নেই)

রিটেনের জন্য:

Green Banking by Banks: Focus Writing

Financial Inclusion in Bangladesh: Focus Writing

Bangabandhu Satellite: Benefits

আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করতে ফেসবুক আইকনে ক্লিক করুনঃ
Updated: May 14, 2019 — 2:43 pm

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *