আখতারুজ্জামান ইলিয়াস: যেভাবে পড়লে মনে থাকে

এই পোস্টে সাহিত্যিক আখতারুজ্জামান ইলিয়াস সম্পর্কে সেই বিষয়গুলোই যুক্ত করা হয়েছে, যা প্রয়োজনীয়। অনর্থক বিষয়ের অবতারণা করে রচনাটিকে ভারী করা হয়নি। মনে রাখার সুবিধার্থে গল্প বলার ঢঙে আখতারুজ্জামান ইলিয়াস এর সামগ্রিক জীবনের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা করা হয়েছে। সেইসাথে বোনাস হিসেবে তার বিভিন্ন গল্প ও উপন্যাসের প্রধান চরিত্র এবং রচনার পটভূমির উপর আলোকপাত করা হয়েছে।

বিনা অনুমতিতে সনাতন দা’র আড্ডার কোন পোস্ট কপি করে  নিজের নামে বা কোন ওয়েবসাইটে পাবলিশ  করা নিষেধ। নিজের প্রয়োজনেই বেশি বেশি শেয়ার করে আমাকে উৎসাহ দিন, আড্ডাকে প্রানবন্ত করুন- সর্বোচ্চ ভালটা পাবেন। 

Arts Faculty, DU এর প্রশ্নের আদলে করা মডেল টেস্ট এর প্রশ্ন দেখতে ক্লিক করুন।

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস: পড়ুন গল্পের মত করে

বেগম মরিয়ম ইলিয়াস ও বদিউজ্জামান মোহাম্মদ ইলিয়াস এর শুভ পরিণয় ১২ ফেব্রুয়ারি ১৯৪৩ সালে জন্ম দিল মঞ্জু(Monju) নামে এক শিশুর । গাইবান্ধা জেলার গোটিয়া গ্রামে মামার বাড়িতে মঞ্জু বেড়ে উঠলেও পৈতৃক বাড়ি বগুড়া জেলাকে ভোলেননি। দশম শ্রেণির ছাত্র থাকাকালেই সওগাত পত্রিকায় মঞ্জুর ছোটগল্প প্রকাশিত হয়।

একটু বড় হয়েই মঞ্জু উগরে দিলেন দুইটি উপন্যাস, গোটা পাঁচেক গল্পগ্রন্থ আর একটি প্রবন্ধ সংকলন। বাংলা সাহিত্যে সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহর পরেই মঞ্জু হয়ে উঠলেন  আখতারুজ্জামান মোহাম্মদ ইলিয়াস- সর্বাধিক প্রশংসিত একজন স্বল্পপ্রজ লেখক। দায়িত্ব পালন করে গেছেন বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক সংগঠন বাঙলাদেশ লেখক শিবির এর সভাপতি হিসেবে।

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস শুধু লিখেই ক্ষান্ত হননি, ১৯৮৩ সালে  তিনি ছিনিয়ে নিয়ে যান বাংলা একাডেমি পুরস্কার, ১৯৮৭ সালে আলাওল সাহিত্য পুরস্কার এবং ১৯৯৬ সালে আনন্দ পুরস্কার। শুধু কী তাই! ১৯৯৯ সালে মরনোত্তর একুশে পদকও ব্যাগে ভরে ফেলেন এই সাহিত্যিক।

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস উপন্যাস প্রসব করেছেন মাত্র দুটি। কিন্তু একেবারে ফাটিয়ে দিয়েছেন। চিলেকোঠার সেপাই  লিখেছেন ১৯৮৭ সালে আর খোয়াবনামা লিখেছেন ১৯৯৬ সালে। চিলেকাঠার সেপাই উপন্যাস ও কান্না গল্পটি অবলম্বনে চলচ্চিত্রও হয়েছে। এই দুটি উপন্যাস সম্পর্কে আমাদের দেশীয় প্রোডাক্ট ইমদাদুল হক মিলন বলেন : “গত ১৫-২০ বছরের মধ্যে তাঁর এ দু’টি উপন্যাস বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ উপন্যাস।”

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস: ছোট গল্প সংকলন

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস ছোট গল্প সংকলন করেছেন ৫টি। ১৯৭৬ সালে ‘অন্য ঘরে অন্য স্বর’ এ কথা বলতে বলতে দেখেন যে ১৯৮২ সাল হাজির। লিখে ফেললেন ‘খোঁয়ারি’। ১৯৮৫ সালে তাঁর ‘দুধভাতে উৎপাত’ শুরু হলে ‘দোজখের ওম’ নামিয়ে ফেললেন ১৯৮৯ সালে। এরপর ১৯৯৭ সালে ডুব মারেন ‘জাল স্বপ্ন, স্বপ্নের জাল’ এ।

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস এখানেই থেমে গেলে আমাদের সুবিধা হত। কম পড়া লাগত। কিন্তু কপালে না থাকলে ঘি, ঠক ঠকালে হবে কী!  সংস্কৃতির ভাঙ্গা সেতু  নামে ২২টি প্রবন্ধ নিয়ে সংকলন বের করে ফেললেন।

কী আর করা! আখতারুজ্জামান ইলিয়াস এর রচনাসমগ্র থেকে উল্লেখযোগ্য কিছু রচনার সারমর্ম গল্পে গল্পে জেনে নিই।

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস:  উল্লেখযোগ্য কিছু রচনা

চিলেকোঠার সেপাই

১৯৬৯ সালের গণঅভ্যুত্থানের সময়ের প্রেক্ষাপটে রচিত উপন্যাস। ঊনসত্তর সালের প্রবল গণঅভ্যুত্থানের যারা প্রধান শক্তি ছিল, সেই শ্রমজীবী জনসাধারণ কীভাবে আন্দোলন-পরবর্তী সময়টিতে প্রতারিত এবং বঞ্চিত হলো, বামপন্থীদের দোদুল্যমানতা আর ভাঙনের ফলে, জাতীয় মুক্তির আকাঙ্ক্ষাকে যথাযথভাবে ধারণ করতে না পারার ফলে অজস্র রক্তপাতের পরও রাজনীতির ময়দান থেকে তাদের পশ্চাদপসরণ ঘটলো, আওয়ামী লীগ প্রধান শক্তি হয়ে উঠলো, উপন্যাসটির উপজীব্য সেই ঐতিহাসিক সময়টুকুই।

এই উপন্যাসের প্রধান চরিত্র রঞ্জু। অন্যান্য তিনটি প্রধান চরিত্র ওসমান, আনোয়ার এবং হাড্ডি খিজির।

খোয়াবনামা

ব্রিটিশ শাসনামল হলো খোয়াবনামার পটভূমি। ভারতবর্ষ থেকে ব্রিটিশ তাড়ানোর কথা এ উপন্যাসে এসেছে। এসেছে জমিদারি প্রথা উচ্ছেদের কথাও।

এই উপন্যাসের কিছু চরিত্র হচ্ছে- তমিজের বাবা, দাদা-পরদাদা, চেরাগ আলী, বাঘার মাঝি, কুলসুম, শরাফত ম-ল, কেরামত, ফুলজান ইত্যাদি।

দুধভাতে উৎপাত

নিম্নবিত্ত আর উচ্চবিত্ত মানুষের মধ্যে বিভেদের সমীকরণ হচ্ছে “দুধভাতে উৎপাত” গল্পে। জয়নবের মৃত্যুকালে সন্তানদের দুধ ভাত খাওয়ানোর শেষ ইচ্ছার মাধ্যমে বাংলার মানুষের দুর্দশাগ্রস্থ জীবন কাহিনীই ফুটে উঠেছে এ গল্পে। যেমন-অন্নদামঙ্গল কাব্যে ঈশ্বরী পাটনী বলেছে ” আমার সন্তান যেন থাকে দুধেভাতে”।

এই গল্পের কিছু চরিত্র হচ্ছে- জয়নব, হারুন মৃধা ওহিদুল্লা ইত্যাদি।

আরও কিছু

প্রত্যক্ষভাবে মুক্তিযুদ্ধ এসেছে, আখতারুজ্জামান ইলিয়াস এর এমন গল্প সাতটি। এর মাঝে ‘অপঘাত’ আর ‘রেইন কোট’ এই দুটো গল্পের বিষয় হলো আক্রান্ত মানুষের হারানো সাহস ফিরে পাওয়া। মিলির হাতে স্টেনগান’ আর ‘খোয়ারি’ গল্প দুটিতে বস্তুজগত শাসন করছে অস্ত্র আর রাজনৈতিক ক্ষমতা। এটা এমন একটা সময়কে উপজীব্য করে রচিত যখন পুরনো শাসন ভেঙে পড়েছে, নতুন শক্তি নিজের মত করে বাঁটোয়ারা করে নিচ্ছে চারপাশ।

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস সম্পর্কে কথা বলতে গিয়ে পশ্চিমবঙ্গের প্রখ্যাত সাহিত্যিক মহাশ্বেতা দেবী বলেছেন, “কী পশ্চিম বাংলা কী বাংলাদেশ সবটা মেলালে তিনি শ্রেষ্ঠ লেখক।”

আখতারুজ্জামান ইলিয়াস সারা জীবন লড়াই করেছেন ডায়াবেটিস, জন্ডিস-সহ নানাবিধ রোগের বিরুদ্ধে। ১৯৯৭ সালের ৪ঠা জানুয়ারি আখতারুজ্জামান ইলিয়াস ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা কম্যুনিটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

০৬/০৭/২০১৮ তারিখে অনুষ্ঠিতব্য bangladesh bank assistant director এর প্রিলি পরীক্ষার জন্য খুব সহজে পড়ুন:

*** শেষ সময়ের প্রস্তুতি

১। কিভাবে ব্যাংক প্রিলি ইংরেজি পড়বেন

২। ব্যাংক ও বিসিএস এ আসা গুরুত্বপূর্ণ বাগধারা-০১

৩। ব্যাংকের প্রিলি পরীক্ষায় আসা ১৫বছরের শব্দসম্ভার- ০১

৪। ব্যাংকের জন্য ২৪৭টি বাংলা প্রশ্নের মধ্যে ১ম ১২৩টি question and answer

৫। bangladesh bank question pattern: ৯৬টি Translation

৬। bank general knowledge question(Sonali): ৭২টি

৭। bank exam questions answers: Computer(28টি)

bangladesh bank recruitment model question-01/15

৯। international general knowledge for bank preli: 175টি

১০। general knowledge bangladesh: ৮২টি

১১। সন্ধি বিচ্ছেদ: গুরুত্বপূর্ণ ২১০টি মাত্র- এর বেশি প্রয়োজন নেই

১২। পারিভাষিক শব্দ(২৫৬টি): কমন পড়বেই

১৩। উৎস অনুসারে শব্দের শ্রেণিবিভাগ: বিসিএস ও ব্যাংক

১৪। এক কথায় প্রকাশ: ৪৭৬টি (এর বাইরে আর কিছু নেই)

রিটেনের জন্য:

Green Banking by Banks: Focus Writing

Financial Inclusion in Bangladesh: Focus Writing

Bangabandhu Satellite: Benefits

Social Safety Net Program: focus writing

উল্লেখ্য যে, সনাতন দা‘র আড্ডার এরকম আরও এবং কার্যকরী পোস্ট আপডেট পেতে notification subscribe করে রাখুন। আড্ডার নতুন পোস্ট আপনাকেই খুজে নিবে। নিচের ফেসবুক বাটনে ক্লিক করে আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করে রাখতে পারেন।

অনেক ওয়েব সাইটে আমার সনাতন দা’র আড্ডার(www.sonatondaradda.com) লেখাগুলো কার্টেসির তোয়াক্কা না করেই নিজেদের বলে বা সংগৃহীত বলে চালিয়ে দেন। সহজ কথা, আপনি কোথা থেকে সংগ্রহ করেছেন আপনি ভালই জানেন। তাই এই ছোটলোকি কারবার থেকে বিরত থাকুন। পারলে নিজে কিছু করুন।

আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করতে ফেসবুক আইকনে ক্লিক করুনঃ
Updated: December 9, 2019 — 12:47 am

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *